ছাত্রীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে এসেছেন স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা সহ ছাত্ররা। ইনসেটে রুবি পোদ্দার।

সত্যজিৎ ব্যানার্জি, বারুইপুর; ধর্ষণ করে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয় বারুইপুরের পিয়ালীর ঘোলাঘাটার ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী রুবি পোদ্দারকে। বাড়ির গোয়াল ঘরে বস্তাবন্দি অবস্থায় তার রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ঘটনায় বারুইপুর থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করে অভিযুক্ত বাড়িওয়ালা অনাথ মণ্ডলকে। এলাকার এক ছাত্রীর খুনের পর শনিবার সকাল থেকে পিয়ালীর ঘোলাঘাটা এলাকা থম্ থমে, বাসিন্দারা সবাই সরব অভিযুক্তের যেন ফাঁসী হয়। এলাকায় পড়েছে পোস্টার অনাথ মণ্ডলের শাস্তি চাই।

এদিন সকাল থেকেই এলাকায় মোতায়েন বারুইপুর থানা, জীবনতলা থানার পর্যাপ্ত পুলিশ বাহিনী। নিজে এলাকায় গিয়ে রয়েছেন বারুইপুর এসডিপিও অর্ক ব্যানার্জি, বারুইপুর থানার আইসি অরুপ ভৌমিক ও জীবনতলার ওসি সুভাষ ঘোষ। অশান্তি এড়াতে পিয়ালী বাজার এলাকাতে মোতায়েন করা হয়েছে র‍্যাফ, প্রচুর মহিলা পুলিশ। মাঝে মধ্যেই এলাকায় শান্তি বজায় রাখতে টহল দিচ্ছে পুলিশ।

ঘোলাঘাটায় ছাত্রীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে আসেন স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা সহ ছাত্ররা। রুবির বাবা আর মা বাকরুদ্ধ। প্রতিবেশীরা সবাই নিশ্চুপ হয়ে গিয়েছে। এর মধ্যেই শুক্রবার রাতে ছাত্রীর শেষ কৃত্য সম্পন্ন হয়েছে। রাতে মৃতদেহ নিয়ে আসার পর বাসিন্দারা আবার উত্তেজিত হয়ে যে রান্নাঘরে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ তা ভাঙচুর করেন। এলাকায় রাতে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়।

এর পাশাপাশি রাতেই জীবনতলা থানার পিয়ালী এলাকায় এক স্থানীয় তৃনমূল নেতা তথা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক নন্দ গায়েনের গায়েন মার্কেটের উপরের কমপ্লেক্স ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়। আসবাবপত্র ভাঙচুর করা হয়, জানালার কাঁচ ভাঙচুর করা হয়, চেয়ার টেবিল ভাঙচুর করা হয়। এই বিষয়ে স্থানীয় তৃনমূল কংগ্রেস নেতা নন্দ গায়েনের অভিযোগ, ধর্ষণকারী অনাথ মণ্ডল সিপিএম করত। তার অনুগামী সিপিএমের দুষ্কৃতিরা এই ভাঙচুর করেছে। আমি অনাথ মণ্ডলকে ছাত্রী ধর্ষণ করে খুন কাণ্ডে ধরিয়ে দিয়েছি পুলিশের হাতে, তাই এই আক্রমন। আমাকে চক্রান্ত করা হয়েছিল মেরে ফেলবার। এই ভাঙচুরে আমার ২ লক্ষ টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে। জীবনতলা থানায় ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে ও ছাত্রী খুনের প্রতিবাদে এদিন সকাল থেকেই পিয়ালী বাজার বন্ধ রাখা হয়েছিল। কোন দোকান খোলেনি। এলাকায় যান বারুইপুর ব্লক তৃনমূল কংগ্রেস সভাপতি শ্যাম সুন্দর চক্রবর্তী, শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ অজয় মাইতি। এক প্রতিবাদ সভাও করা হয়। এদিকে পিয়ালী বাজার এলাকায় আচমকা একটা বোমা ফাটে, আতঙ্ক ছড়িয়ে পরে এলাকায়। এই বিষয়ে বারুইপুর পুলিশ জেলার সুপার অরিজিত সিনহা জানান, একটা চকোলেট বোম ফাটে, তাতেই বিভ্রান্তি ছড়ায়। আমরা এই বিষয়টা দেখছি কে ফাটিয়েছে।

Leave a Reply